Gmail! | Yahoo! | Facbook | Bangla Font
শিরোনাম
প্রচ্ছদ / জাতীয় / মূর্তি সরানোয় ভাবমূর্তি নষ্ট হয়নি: আইনমন্ত্রী
মূর্তি সরানোয় ভাবমূর্তি নষ্ট হয়নি: আইনমন্ত্রী

মূর্তি সরানোয় ভাবমূর্তি নষ্ট হয়নি: আইনমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক , সবুজবাংলা২৪ডটকম (ঢাকা) : সুপ্রিম কোর্টের সামনে ন্যায়বিচারের প্রতীক হিসেবে স্থাপিত ভাস্কর্য সরানোয় বহির্বেশ্বে দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট হয়নি বলে মন্তব্য করেছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। এতে বরং ইসলামসহ অন্যান্য ধর্মের প্রতি সম্মান দেখানো হয়েছে বলে মনে করেন তিনি।

শনিবার রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে ‘ওয়ার্ল্ড নো টোব্যাকো ডে ২০১৭’ এর অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন আইনমন্ত্রী।

ন্যায়বিচারের প্রতীক গ্রীক দেবী থেমিসের ভাস্কর্য গত বছরের ডিসেম্বরে সুপ্রিম কোর্টের সামনে স্থাপিত হয়। পরে এটিকে ‘মূর্তি’ আখ্যা দিয়ে সরানোর দাবি তোলে হেফাজত। এ দাবির সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীও একমত পোষণ করেন। যদিও ভাস্কর্যটির নির্মাতা মৃণাল হক বলছেন, এটি থেমিস নয়, শাড়ি-ব্লাউজ পরা বাঙালি নারী।
প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা বৃহস্পতিবার (২৫ মে) বিকালে জ্যেষ্ঠ আইনজীবীদের সঙ্গে বৈঠক করেন। বৈঠকে ভাস্কর্যটি সরানোর সিদ্ধান্ত হয়। ওইদিন রাতেই সরানোর সিদ্ধান্ত কার্যকর হয়।

এতে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্ট কিংবা মৌলবাদীদের উত্থান হবে কি-না- এমন প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী বলেন, ‘যতোটুকু আমি জেনেছি, প্রধান বিচারপতি এটি সরানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন’।

‘যারা উদ্বেগ প্রকাশ করছেন, আমি তাদেরকে শুধু এ কথাই বলবো, এই মূর্তিটি, আমরা যে থেমিস বলি, এটির আসল রুপ না। সেক্ষেত্রে এটি কোনো মূর্তিই ছিলো না বলে আমার মনে হয়। এবং এই মূর্তিটা সরিয়ে বরঞ্চ ইসলাম ধর্মসহ অন্যান্য ধর্মকে সম্মান করা হয়েছে’।

আনিসুল হক বলেন, ‘এখানে আসল থেমিসকে বিকৃত করা হয়েছে। বিকৃতি থেকে সরে আসতে চাই। বিকৃতির সব সময় নিন্দা করি। এতে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্ট হয়নি’।

এর আগে সকালে প্রজ্ঞার পক্ষ থেকে পাঁচজন গণমাধ্যমকর্মীকে তামাক নিয়ন্ত্রণ সাংবাদিকতায় পুরস্কার দেওয়া হয়। এতে প্রিন্ট-অনলাইন বাংলা, প্রিন্ট-অনলাইন ইংরেজি ও ব্রডকাস্ট-রেডিও এই তিনটি বিভাগে পুরস্কার দেওয়া হয়। পুরস্কার বিজয়ীরা হলেন, বরিশালের স্থানীয় দৈনিক কীর্তনখোলার প্রধান প্রতিবেদক গোলাম মর্তুজা জুয়েল, দ্য ডেইলি স্টারের জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক পরিমল পালমা, যমুনা টেলিভিশনের জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক সুশান্ত সিনহা, যৌথভাবে একটি পুরস্কার পেয়েছেন দৈনিক জনকণ্ঠের (বর্তমানে যুগান্তরে কর্মরত) নিজস্ব প্রতিবেদক এস এ এম হামিদুজ্জামান ও বাংলা ট্রিবিউনের বাণিজ্য বিভাগের প্রধান শফিকুল ইসলাম এবং শিশু সাংবাদিকতায় বিশেষ পুরস্কার পেয়েছে বিডি নিউজের হ্যালো বিভাগের সাদিক ইভান।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেন, তামাক নিয়ন্ত্রণে সচেতনতা প্রয়োজন। এ জন্য প্রাথমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের অন্তর্ভুক্ত করতে হবে। জুরি বোর্ডের প্রধান হিসেবে তিনি কীভাবে পুরস্কার বিজয়ীদের নির্বাচন করেছেন তার একটি সংক্ষিপ্ত বর্ণনাও দেন।

পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন দৈনিক সমকালের উপসম্পাদক মোজাম্মেল হোসেন। এ ছাড়া ফ্রেমওয়ার্ক কনভেনশন অন টোব্যাকো কন্ট্রোলের পরামর্শক শরিফুল আলম, আত্মার আহ্বায়ক মর্তুজা হায়দার লিটন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
সবুজবাংলা২৪ডটকম/ ঢাকা/ ২৭ মে ২০১৭ /শনিবার/ ১৫: ৪৫

মন্তব্য

Scroll To Top
Copy Protected by Chetans WP-Copyprotect.