Gmail! | Yahoo! | Facbook | Bangla Font
শিরোনাম
প্রচ্ছদ / বিভাগীয় / ঢাকা বিভাগ / ঢাকা / শফিউল আলম প্রধান ছিলেন শোষন ও জুলুমের বিরুদ্ধে সোচ্চার কণ্ঠ : জাগপা ছাত্রলীগ ঢাকা মহানগর
শফিউল আলম প্রধান ছিলেন শোষন ও জুলুমের বিরুদ্ধে সোচ্চার কণ্ঠ : জাগপা ছাত্রলীগ ঢাকা মহানগর

শফিউল আলম প্রধান ছিলেন শোষন ও জুলুমের বিরুদ্ধে সোচ্চার কণ্ঠ : জাগপা ছাত্রলীগ ঢাকা মহানগর

নিজস্ব প্রতিবেদক, সবুজবাংলা২৪ডটকম (ঢাকা) : ২০ দলীয় জোটের অন্যতম শীর্ষনেতা ও জাগপার সভাপতি জননেতা শফিউল আলমের প্রধানের ইন্তেকালে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন ঢাকা মহানগর জাগপা ছাত্রলীগের সিনিয়র সহ- সভাপতি- মীর আমির হোসেন আমু, সহ সভাপতি- মানিক, সাধারণ সম্পাদক – ফয়সাল হোসেন,ও যুগ্ম সম্পাদক- নুর ইসলাম, শামীম, আসাদুজ্জামান আসাদ, আশিক, সুমন প্রমূখ ।

গত বুধবার একযুক্ত বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, শফিউল আলমের প্রধানের ইন্তেকালে দেশবাসী একজন সৎ সাহসী ও দেশপ্রেমিক রাজনৈতিককে হারালো। তিনি সর্বদা শোষন ও জুলুমের বিরুদ্ধে ছিলেন সোচ্চার কণ্ঠ। আধিপত্যবাদ ও সাম্রজ্যবাদ বিরোধী সংগ্রামে তার অবদান চির স্মরনীয় হয়ে থাকবে। বর্তমান সরকারের একদলীয় দুঃশাসন থেকে জাতিকে মুক্ত করতে তিনি ছিলেন নেতৃত্বের সম্মুখ ভাগে। তিনি সকল প্রকার ভয়-ভীতি, লোভ-লালসার উধের্ব থেকে বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদ ও ধর্মীয় মুল্যোবোধের আলোকে সমাজ প্রতিষ্ঠার জন্য তিনি আমরন সংগ্রাম করেছেন।

নেতৃবৃন্দ বলেন, জননেতা শফিউল আলমের প্রধানের ইন্তেকালে আমাদের এই সংগঠনটি  একজন প্রকৃত অবিভাবকে হারালো। সংগঠনের যে কোন কর্মসূচিতে শরীক থেকে আমাদের উৎসাহ-অনুপেরণা যোগাতেন। তিনি কখনো ষড়যন্ত্র ও চক্রান্তের কাছে মাথানত করেননি। তিনি বর্ণাঢ্য ও রাজনৈতিক জীবনের অধিকারী ছিলেন। তিনি হুলিয়া, হামলা-মামলা এবং কারা নির্যাতন তাকে কখনো নিজস্ব গতিপথ থেকে বিচ্ছিন্ন করতে পারেনি।

নেতৃবৃন্দ মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা ও শোক সন্তপ্ত পরিবারবর্গের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

শফিউল আলম প্রধান গত রোববার সকাল ৭টার দিকে রাজধানীর আসাদগেটের নিজ বাসভবনে ইন্তেকাল করেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। এদিকে মৃত্যুর খবর পেয়ে গত রোববার সকালে রাজধানীর আসাদগেট এলাকায় প্রধানের বাড়িতে গেছেন ঢাকা মহানগড় নেতৃবৃন্দ। সেখানে উপস্থিত হয়েছেন জাগপা সহ যুব জাগপা,জাগপা ছাত্র লীগ,জাগপা মজদুর লীগ,আরও অনেক কেন্দ্রীয় নেতাও। তারা প্রধানের পরিবারের সদস্যদের সান্ত্বনা দিচ্ছেন।

প্রধানের পারিবাকির সূত্রে জানা গেছে, মৃত্যুকালে শফিউল আলম প্রধানের বয়স হয়েছিল ৬৭ বছর। তিনি স্ত্রী রেহানা প্রধান, মেয়ে ব্যারিস্টার তাহমিয়া প্রধান, ছেলে রাশেদ প্রধানসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

গত রোববার জোহরের নামাজের পর আসাদ গেইটে দলের কার্যালয়ের সামনে শফিউল আলম প্রধানের প্রথম নামাজে জানাজা হয়।দিনাজপুর,ও পঞ্চগড়ে জানাজা শেষে সোমবার বাদ আসর বায়তুল মোকাররম মসজিদে জানাজার পর বিকালে বনানী কবরস্থানে দাফন হয়।

শফিউল আলম প্রধান ১৯৫০ সালে পঞ্চগড়ে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা গমির উদ্দীন প্রধান পূর্ব পাকিস্তান প্রাদেশিক পরিষদের স্পিকার ছিলেন।

সবুজবাংলা২৪ডটকম/ ঢাকা/ ২৬ মে ২০১৭ /শুক্রবার/ ০৬: ১৫

মন্তব্য

Scroll To Top
Copy Protected by Chetans WP-Copyprotect.