Gmail! | Yahoo! | Facbook | Bangla Font
শিরোনাম
প্রচ্ছদ / বিভাগীয় / খুলনা বিভাগ / ঝিনাইদহে শিশু নির্যাতনের অভিযোগে ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা
ঝিনাইদহে শিশু নির্যাতনের অভিযোগে ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা

ঝিনাইদহে শিশু নির্যাতনের অভিযোগে ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা

আতিকুর রহমান টুটুল,সবুজবাংলা২৪ডটকম (ঝিনাইদহ) : চুরির অপবাদ দিয়ে ঝিনাইদহ সদর উপজেলার পার্বতিপুর গ্রামে কামরুল নামে কথিত এক আওয়ামীলীগ নেতা সাগর (১৩) নামে এক শিশুর উপর নির্যাতন চালিয়েছেন। বোতলে পানি ভরে তা দিয়ে মেরে শিশুটির সারা শরীর থেতলে দেওয়া হয়।

এ ঘটনায় ঝিনাইদহ সদর থানায় সোমবার রাতে ৬ জনকে আসামী করে একটি মামলা হয়েছে, মামলা নং ২৩/২০১৫। নির্যাতনের শিকার হয়েছে পার্বতিপুর গ্রামের হোসেন আলীর ছেলে সাগর (১৩)। এ সময় একই গ্রামের আলী আহাম্মদের ছেলে রবিউল (১৪) ও চন্ডিপুর গ্রামের আব্দুল হালিমের মাদ্রাসা পড়–য়া ছেলে সাব্বির হোসেন (১২) কে চোর বানিয়ে পুলিশে দেওয়া হয়।

ঝিনাইদহ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হাসান হাফিজুর রহমান ঘটনা নিশ্চিত করে জানান, অভিযুক্ত ব্যক্তিকে গ্রেফতারের চেষ্টা করা হচ্ছে।

মামলার বাদী ও শিশু সাগরের বাবা আলী আহম্মদ জানান, গত রোববার বেলা ১১টার দিকে চুরির অপবাদ দিয়ে তার নিরাপরাধ ছেলেকে ধরে নিয়ে যায় নিজেকে আওয়ামীলীগ নেতা পরিচয় দানকারী পার্বতিপুর গ্রামের কফিল উদ্দীনের ছেলে কামরুল। এরপর শিশু সাগরকে বেধে তিন ঘন্টা ধরে মারধর করা হয়। মারধরের সময় মাদ্রাসায় পড়া দুই শিশু সাব্বির ও রবিউলের নাম স্বীকার করার জন্য কামরুল চাপ দিতে থাকে। উদ্দেশ্য তাদের বাবার কাছ থেকে টাকা আদায় করা। এক পর্যায়ে টাকা আদায়ের জন্য শিশু সাব্বির ও রবিউলকেও ধরে আনা হয়।

এদিকে নির্যাতনে অসুস্থ হয়ে পড়লে নিকটস্থ বেতাই পুলিশ ক্যাম্পের উপ-পরিদর্শক সাইফুদ্দৌলা খবর পেয়ে সাগরসহ তিন শিশুকে উদ্ধার করেন। পরবর্তীতে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আজবাহার আলী শেখের নির্দেশে তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে বাড়ি পাঠানো হয়।

তবে উপ-পরিদর্শক সাইফুদ্দৌলা জানিয়েছেন, তার সামনে নির্যাতনে কোন ঘটনা ঘটেনি। তিন শিশুকে বসিয়ে রাখা অবস্থায় তাদের উদ্ধার করা হয়। তদন্ত সাপেক্ষে নির্যাতনের বিষয়টি জানা যাবে বলেও তিনি জানান।

এলাকাবাসি অভিযোগ করেছেন, কোন পদ পদবী না থাকলেও নিজেকে আওয়ামী লীগের নেতা পরিচয় দিয়ে কামরুল এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে। বিচার শালিসের নামে চাঁদাবাজী করছেন।

ঝিনাইদহ সদর উপজেলার গান্না ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুস সোবাহান মাষ্টারের ছেলে কামাল হোসেন জানান, কামরুলের নির্যাতনের শিকার হচ্ছে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা।

তিনি আরো জানান, যে পরিবারের তিন শিশুকে নির্যাতন করা হয়েছে তারাও আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে জড়িত। কিন্তু মারধরের ভয়ে কামরুলের বিরুদ্ধে কেও মুখ খুলতে সাহস পায় না। সোমবার সন্ধ্যায় ঝিনাইদহ সদর থানায় এলাকার বহু মানুষ গিয়ে কামরুলের নানা অপকর্মের কথা বলে এসেছেন। স্থানীয় বেতাই পুলিশ ক্যাম্প ও গান্নার ইউপি চেয়ারম্যানের ছত্রছায়ায় কামরুল দিনকে দিন বেপরোয়া হয়ে উঠছে বলে তাদের ভাষ্য।

এলাকার আওয়ামলীগ নেতা সিরাজ মালিথা, কেদার আলী ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল ওহাব অভিযোগ করেন, কামরুল আওয়ামীলীগের কেও না। তার কারণে দলের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন হচ্ছে। তাদের অভিযোগ সন্ত্রাসী কামরুলের হাতে এলাকার শিক্ষক আবু তাহের, মতিন স্যারের ছেলে কামরুজ্জামানসহ অনেক সম্মানী মানুষ লাঞ্চিত হয়েছেন। আওয়ামীলীগ কর্মী মহিদুলের ফুফু মারা গেলে তাকে হত্যা করার অভিযোগ তুলে ৩০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেন কামরুল। এ ভাবে সারা ইউনিয়ন জুড়ে চাঁদাবাজী করে বেড়াচ্ছেন কামরুল।

এ ব্যপারে অভিযুক্ত কামরুলের মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করলে তার ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

সবুজবাংলা২৪ডটকম/ ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি / ২০ অক্টোবর ২০১৫ / মঙ্গলবার / ১৩:৪৬

মন্তব্য

Scroll To Top
Copy Protected by Chetans WP-Copyprotect.