Gmail! | Yahoo! | Facbook | Bangla Font
শিরোনাম
প্রচ্ছদ / অন্যান্য / ‘ধর্ষক’ ছেলেকে লেখা মহাত্মা গান্ধীর চিঠি নিলামে
‘ধর্ষক’ ছেলেকে লেখা মহাত্মা গান্ধীর চিঠি নিলামে

‘ধর্ষক’ ছেলেকে লেখা মহাত্মা গান্ধীর চিঠি নিলামে

সবুজবাংলা ডেস্ক (ভারত) : ভারতের জাতির জনক মহাত্মা গান্ধীর তিনটি চিঠি নিলামে উঠতে যাচ্ছে। এই চিঠির প্রাপক ছেলে হরিলাল। কড়া ভাষায় তার প্রতি নিজের বিদ্বেষ উগড়ে দিয়েছেন গান্ধী।

১৯৩৫ সালের জুন মাসে ছেলেকে উদ্দেশ করে চিঠি তিনটি লেখেন মোহনদাস করমচাঁদ গান্ধী। চিঠিগুলোর প্রতিটি ছত্রে ছেলের প্রতি নিজের উষ্মা ও ঘুণা গোপন করেননি তিনি। একটি চিঠিতে হরিলালের চালচলন নিয়ে অভিযোগের প্রেক্ষিতে তিনি লিখেছেন, তোমার জানা উচিত, তোমাকে নিয়ে যে সমস্যা তৈরি হয়েছে, তা এই মুহূর্তে স্বাধীনতা আন্দোলনের চেয়েও আমার কাছে বেশি জটিল।

আরেকটি চিঠিতে গান্ধী লিখেছেন, মনু আমার কাছে তোমার সম্পর্কে বেশকিছু ভয়ঙ্কর কথা বলেছে। সে জানিয়েছে, তার আট বছর বয়স হওয়ার আগে তুমি তাকে ধর্ষণ করেছিলে। ঘটনায় ও এতই জখম হয় যে, চিকিত্সার প্রয়োজন দেখা দেয়।

প্রসঙ্গত, হরিলালের মেয়ে মনু সবরমতী আশ্রমে তার ঠাকুরদা মোহনদাসের কাছে এই সময় কিছু দিন কাটিয়েছিলেন। বোঝা যায়, তখনই জীবনের চরম লজ্জাজনক অধ্যায়টি গান্ধীজির কাছে তিনি প্রকাশ করেন। মহাত্মার তিনটি চিঠিই গুজরাটি ভাষায় লেখা। চিঠিগুলো গান্ধী পরিবারের কোনো একটি শাখা সূত্রেই ইংল্যান্ডের শ্রপশায়ারের নিলাম সংস্থা মুলকস অকশনার্স কর্তৃপক্ষের হাতে আসে। নিলামকারী সংস্থার দাবি, প্রতিটি চিঠির দাম আনুমানিক ৫০ থেকে ৬০ হাজার পাউন্ড ছুঁতে পারে।

বাবার মতোই ইংল্যান্ডে গিয়ে ব্যারিস্টারি পড়ার ইচ্ছে ছিল হরিলাল গান্ধীর। কিন্তু সেই সময় ব্রিটিশ ঔপনিবেশিকতার বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করায় গান্ধীজির মানসিকতা তাতে সায় দেয়নি। ইংল্যান্ড যেতে সে কারণেই হরিলালকে তিনি অনুমতি দেননি। এরপর থেকেই বাবা-ছেলের সম্পর্কের অবনতি শুরু হয়। শেষ পর্যন্ত ১৯১১ সালে পরিবারের সঙ্গে সব সম্পর্ক ত্যাগ করেন গান্ধীপুত্র। আমৃত্যু নিজের পিতৃবিদ্বেষ বজায় রেখেছিলেন হরিলাল।

নিলামে ওঠা একটি চিঠিতে ছেলেকে গান্ধীর আকুল প্রশ্ন, দয়া করে আমাকে একদম সত্যি কথাটা জানাও, তুমি কি এখনও মদ্যপান আর ভ্রষ্টাচার নিয়ে মেতে আছ? মদ্যপানের প্রতি এই আকর্ষণের চেয়ে তোমার মৃত্যুই আমার কাছে অধিক কাম্য। রয়টার্স

সবুজবাংলা২৪ডটকম/ভারত / সবুজবাংলা ডেস্ক / ১৫ মে ২০১৪ / বৃহস্পতিবার / ১৯:৫০

মন্তব্য

Scroll To Top
Copy Protected by Chetans WP-Copyprotect.