Gmail! | Yahoo! | Facbook | Bangla Font
শিরোনাম
প্রচ্ছদ / জাতীয় / ব্যবসায়ী সুমন দত্ত হত্যা মামলায় ৪ জনের ফাঁসির আদেশ
ব্যবসায়ী সুমন দত্ত হত্যা মামলায় ৪ জনের ফাঁসির আদেশ

ব্যবসায়ী সুমন দত্ত হত্যা মামলায় ৪ জনের ফাঁসির আদেশ

jatiyo2

ঢাকা: ঢাকার মোহাম্মদপুরের কম্পিউটার ব্যবসায়ী সুমন কুমার দত্ত হত্যার দায়ে ৪ আসামিকে ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। রোববার ঘোষিত মামলাটির রায়ে ৬ আসামির একজনকে ২ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড এবং বাকি একজনকে বেকসুর খালাস দেওয়া হয়েছে।

মামলাটি ঢাকার তিন নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক এবিএম সাজেদুর রহমান এ রায় ঘোষণা করেন।

রায়ে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ডাদেশপ্রাপ্ত চার আসামি হচ্ছেন আ. করিম সরদার, তার সহোদর রাশেদ সরদার রাজু, দ্বীন ইসলাম দ্বীনা ও নাসির হোসেন গাজী। তাদেরকে চুরির দায়ে আরও ৫ বছর করে কারাদণ্ড ও ৫ হাজার টাকা করে জরিমানা অনাদায়ে ৬ মাস করে কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়েছে।

চোরাই মাল রাখার দায়ে ২ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও ২ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ২ মাসের কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়েছে আসামি আসাদুজ্জামান খান সজিবকে।

অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় বেকসুর খালাস পেয়েছেন শামীম ফকির।

আসামিদের মধ্যে কারাগারে আটক আ. করিম সরদার, দ্বীন ইসলাম দ্বীনা ও নাসির হোসেন গাজীকে আদালতে হাজির করা হয়। জামিনে আসামি শামীম ফকির ও আসাদুজ্জামান খান সজিবও আদালতে হাজির ছিলেন। রাশেদ সরদার রাজু পলাতক রয়েছেন।

মৃত্যুদণ্ডাদেশপ্রাপ্ত দুই ভাই আ. করিম সরদার ও রাশেদ সরদার রাজুর বাড়ি বরিশাল জেলার গৌরনদী উপজেলার বিজয়পুর গ্রামে। তাদের পিতার নাম সেকান্দার সরদার। দ্বীন ইসলাম দ্বীনার বাড়ি শরীয়তপুর জেলার সখিপুর উপজেলার আশ্রাফ বেপারী কান্দি গ্রামে। তার পিতার নাম মোসলেম উকিল। নাসির হোসেন গাজীর বাড়ি চাঁদপুর জেলার হাজীগঞ্জ উপজেলার ফুলছোঁয়া গ্রামে। তার পিতার নাম আ. লতিফ গাজী।

২ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড প্রাপ্ত আসাদুজ্জামান খান সজিবের বাড়ি ঢাকার হাজারীবাগের মিতালী রোডে। তার পিতার নাম জাহাঙ্গীর হোসেন।

বেকসুর খালাসপ্রাপ্ত আসামি শামীম ফকিরের বাড়ি মাদারীপুর জেলার কালকিনী উপজেলার দক্ষিণ রমজানপুর গ্রামে। তার পিতার নাম শাহজালাল ফকির।

২০১১ সালের ৫ অক্টোবর মোহাম্মদপুর থানার ২৭ নম্বর রোডের ৪০৫ নম্বর বিল্ডিংয়ের (শর্মা প্যালেস) ৫ম তলায় নিজ অফিসে খুন হন সুমন কুমার দত্ত।

এ ঘটনায় নিহতের বাবা সুশীল কুমার দত্ত বাদী হয়ে ঢাকার মোহাম্মদপুর থানায় ৯ অক্টোবর একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলাটি তদন্ত করে ২০১২ সালের ২৯ ফেব্রুয়ারি মোহাম্মদপুর থানা পুলিশের এসআই আনোয়ার হোসেন ছয়জনকে আসামি করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন।

আসামিদের মধ্যে আ. করিম সরদার, দ্বীন ইসলাম দ্বীনা ও নাসির হোসেন গাজী আদালতের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

মামলার চার্জশিট, এজাহার ও আসামিদের স্বীকারোক্তি থেকে জানা গেছে, ঢাকার মোহাম্মদপুর থানার ২৭ নম্বর রোডের ৪০৫ নং বিল্ডিংয়ের ৫ম তলায় কম্পিউটার সফটওয়্যারের ব্যবসা ছিল সুমন কুমার দত্তের।

২০১১ সালের ৫ অক্টোবর নিজ অফিসে খুন হন সুমন। এরপর তার অফিসের কম্পিউটার ও যন্ত্রপাতি চুরি করে পালিয়ে যান খুনিরা।

এ ঘটনায় সুমনের বাবা সুশীল কুমার দত্ত বাদী হয়ে আ. করিম সরদার ও তার সহোদর রাশেদ সরদার রাজুকে আসামি করে মামলা করেন।

পরবর্তীতে আসামিদের স্বীকারোক্তির ভিত্তিতে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা অপর আসামিদের এ মামলায় অন্তর্ভূক্ত করে।

চলতি বছরের ১০ সেপ্টেম্বর আসামিদের বিরুদ্ধে চার্জ (অভিযোগ) গঠন করা হয়। চার্জশিটের ২১ জন সাক্ষীর মধ্যে ১৬ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করেছেন আদালত।
বাংলাদেশ সময়: ১৩০৫ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০১, ২০১৩

মন্তব্য

Scroll To Top
Copy Protected by Chetans WP-Copyprotect.